Easy Love For Your Life 4 Love Tips | ভালোবাসা টিকিয়ে রাখার 4 টি সেরা উপায়।

Easy Love For Your Life 4 Love Tips | ভালোবাসা টিকিয়ে রাখার 4 টি সেরা উপায়।

Easy Love For Your Life 4 Love Tips | ভালোবাসা টিকিয়ে রাখার 4 টি সেরা উপায়।
LOVE TIPS


যানি না শুধু আমার সাথে কেন এমনটা হয়। শুধু একটু ভালোবাসা চেয়েছিলাম এটাও কি আমার অপরাধ? যদি ও আমাকে ছেড়ে চলে যায় তাহলে আমি আর বেঁচেই থাকতে পারবো না। এখন আমি কি যে করি? কিভাবে যে ওকে বোঝাই? আমাদের মধ্যে যার বেশির ভাগ মানুষের রিলেশনশিপে এই প্রবলেমটি কখনো কখনো এসেই থাকে, যখন আপনার প্রিয় মানুষটি আপনাকে বুঝতেই চায় না নাকি অবহেলা করে অর্থাৎ রিলেশনের প্রথম দিকে প্লিজ তুমি এখনি খেয়ে নাও তুমি না খেলে আমিও খাব না আর রিলেশন একটু পুরনো হলেই এই সবকিছু শুধু ন্যাকামো মনে হতে শুরু করে রাইট, এর পরেই আমাদের মনের সন্দেহ জাগতে শুরু করে, আমাদের মনে হয় ও আমাকে ঠকাছে না তো লাইফে অন্য কেউ চলে আসে নিতো আর প্রিয় মানুষটিকে হারিয়ে ফেলার যন্ত্রণা আমাদের লাইভ কে এডিটিং করে ফেলে বাট সবকিছুর কারণটা কি হ্যাঁ আপনি ঠিকই ধরেছেন। রিলেশনশিপ এ রকম সিচুয়েশন তৈরি করার প্রধান কারণ হল সঠিক আন্ডারস্ট্যান্ডিং অভাব এখন আপনার মনে হতেই পারে, যে আমি তো তাকে ভালোবাসি ওকে বোঝানোর চেষ্টা করি কিন্তু ও তো কোন কিছু বোঝার চেষ্টা করে না বাস্তব রিলেশনে এইরকম টা হয়ে থাকে তখন একজনের ইন্টারেস্ট কোন কারনে কম হতে থাকে রিলেশন টি উল্টো দিকে দৌড়াতে শুরু করে তো আপনার প্রবলেম যদি এমনটাই হয়ে থাকে কিংবা তুমিও যদি কখনো আপনার প্রিয় মানুষটিকে হারিয়ে ফেলতে নাচান তাহলে এই পোস্টটি অন্তত একবার সম্পূর্ণটা পড়তে থাকুন। যদি আপনার এই পোস্টটি পড়ার ধৈর্য থেকে থাকেতাহলে আপনি হয়তো নিশ্চয়ই আপনার প্রিয় মানুষটির সঙ্গে সারা জীবন হ্যাপিলি করাতে পারবেন আর পোস্টটি শুরু করার আগে ধন্যবাদ জানাবো সেই বন্ধুদের যারা এই ধরনের পোস্ট চান।তো চলুন আর বেশি কথা না বাড়িয়ে আজকের পোস্ট শুরু করা যাক।


ভালোবাসা টিকিয়ে রাখার টিপস, Love Tips:


তো আজকের পোস্টটি এমন কিছু শেয়ার করতে চলেছি যা আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে টিকিয়ে রাখতে পারবে এবং আপনাদের ভালোবাসার আন্ডারস্ট্যান্ডিং ও বৃদ্ধি করবে আর আপনার রিলেশনে ভিত্তি মজবুত হবে এবং আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড ও ছেড়ে চলে যাবে না। তো এই ইম্পরট্যান্ট টিপস গুলো মধ্যে যেটি সবার আগে আসে।

১. মেক ইওর সেলফ প্রেজেন্টেবল অর্থাৎ আপনার গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড এর সাথে প্রেজেন্টেবল থাকা উচিত চেষ্টা করুন নিজের লুকস, পার্সোনালিটি, অ্যাটিটিউড, স্মার্টনেস, এখন অনেকে হয়তো বলতে পারেন যে আমি তো দেখতে খারাপ আমি তো কুৎসিত তো আমি আপনাকে সুন্দরী হয়ে উঠতে বলতেছি না আর দেখতে সুন্দর হওয়া টা কিন্তু আমাদের ও হাতে নেই, যতটুকু সম্ভব লুসি এবং ক্যারেক্টার উপর বেস্ট করে একজন ভাল মানুষ হিসেবে নিজেকে তার সামনে রাখার চেষ্টা করুন। এবার মনে করে দেখুন যখন আপনি আপনার গার্লফ্রেন্ড কিংবা বয় ফ্রেন্ড কে ইমপ্রেস করার চেষ্টা করছিলেন তখন কি এখনকার মত নর্মাল ড্রেসে যেতেন তখন কি তার সাথে কি এমন করে সাধারণভাবে কথা বলতেন তখন তো সব থেকে ভালো ড্রেসটি পড়ে মুখে মেকআপ লাগিয়ে চুলে জেল লাগিয়ে ছাড়া তার সামনে হয়তো যেতেনি না আর অলওয়েজ এমন সব কথা বলতেন যাতে তার ভালো লাগতো আর এই সব কিছুর উপর বেছ করে হয়তো সে আপনাকে ভালোবেসে ফেলেছিল।সে ভেবেছিল যে এভাবেই হয়তো অল টাইম তাকে হ্যাপি রাখতে পারবেন কিন্তু যখনই আমাদের রিলেশন গভীর হতে থাকে তখনই আমাদের এই গুন গুলির উপর ইম্পরট্যান্ট দেই না বাট আপনার যেই গুনগুলির জন্য আপনার পার্টনার আপনার ওপর ইন্টারেস্ট হয়েছিল সেইসব গুণগুলি যদি আপনার জীবন থেকে বাদ দিয়ে দেন তার মানে তো অবশ্যই আপনার পার্টনার আপনার উপর থেকে ইন্টারেস্ট উঠে যাওটাই স্বাভাবিক।যেমন ধরুন আপনার সামনে যদি দুটি রেস্টুরেন্ট থাকে এটা হল নিট এন্ড ক্লিন আরেকটা হলো নোংরা তাহলে আপনি কোনটিতে খাবার খেতে পছন্দ করবেন। অবশ্যই আপনি নেট এন্ড ক্লিন রেস্টুরেন্টের দিকে যাবেন তাই ঠিক একই ভাবে বয়ফ্রেন্ড কিংবা গার্লফ্রেন্ডের সাথে ঘুরতে যাচ্ছেন তখন ভালো ড্রেসিং করে যান যাতে অ্যাট্রাক্টিভ দেখা যায় এবং আপনার সাথে ঘুরতে যে যেন সে প্রাউড ফিল করে এবং এর ফলে আপনার সাথে তার কনফিডেন্স লেবেল অনেকটা বেড়ে যায়। আবার যখন তার সাথে কথা বলতেছেন তখন সেই রকমই কথা বলুন যাতে তাকে খুশি করতে পারবে অর্থাৎ তাকে হাসানোর চেষ্টা করুন যাতে ঠিক আগের মত করে সে সবসময় আপনার কথাই ভাবতে থাকে কারণ যত বেশি সে আপনার কথা ভাবতে থাকবে তার লাইফে আপনার ইম্পর্টেন্স ও ততটাই বেশি ফিল করবে আর যত তাড়াতাড়ি আপনি তার লাইফে ইম্পর্টেন্স বুঝাতে পারবেন, তত দ্রুতই তার কাছ থেকে ভালোবাসার রিটার্ন পাবেন আর আপনার মন থেকে করা তার উপর সন্দেহ তাকে হারিয়ে ফেলার ভয় সবকিছু দূরে সরে যাবে।

২.The mind Readind Techique এই টেকনিক টি একটি ভিশন ইম্পরট্যান্ট একটি টেকনিক যা শুধু ভালোবাসা সম্পর্ক কেই নয় যে কোন রিলেশন বেশ ভালো করে তোলার জন্য এবং যেকোন মানুষকে আপনার উপর একটা করার জন্য এই টেকনিকটি খুব ইম্পরট্যান্ট। যেহেতু তার সাথে আপনি অনেকদিন রয়েছেন তাহলে আপনি হয়তো এইটুকু জানেন যে কি করলে সে খুশি হয় কি করলে সে রেগে যায় আপনার কোন কাজে তার ভালো লাগে কোন কাজে তার খারাপ লাগে আপনার তার সঙ্গে হওয়াই এক্সপেরিয়েন্স গুলিরই সাহায্যে আপনি অলেয়েজ চেষ্টা করুন তার মনের কথা বুঝে ফেলার কারণ যখন আপনি তাকে হারিয়ে ফেলার ভয়ে ইমোশনাল হয়ে পড়েন তখন আপনার ব্রেন হয়তো ঠিকমতো কাজেই করে করতে পারেনা যার ফলে আপনি হয়তো কৃতি আচরণ আচরণ কিংবা কথাবার্তা বলে ফেলেন হয়তো তার একদমই ভালো লাগে না তাই নিজেই অ্যাওয়ারনেসের সঙ্গে আগে তাঁর কথা শুনুন যে সে কি বলতে চাইছে তার অসুবিধা কি আর তার এই কথার সাথে পূর্ববর্তী এক্সপিরিয়েন্স ম্যাচ করে দেখুন যে সে আপনার থেকে কি এক্সপেক্ট করেছে কি কারনে সে আপনাকে এভয়েড করছে আপনাকে তার থেকে ইম্পর্টেন্স এবং ভালোবাসা পেতে হলে অবশ্যই তার মন বুঝে তার নিট পূরণ করার চেষ্টা করতে হবে যদি এটুকুতেই আপনি হার মেনে জান তাহলে সারা জীবন তার সাথে কিভাবে থাকবেন তাই স্পার্টলি তার ব্রেন পাওয়ার কে কাজে লাগান ভালোবাসা রিকোয়েস্ট করে কান্নাকাটি করে কিংবা জোর করে ভালোবাসা পাওয়া যায় না কিছু পেতে হলে কিছু হারাতে হয় তাই ভালোবাসা পেতে হলে কিছু অহংকার ত্যাগ করুন। এখন হয়তো আপনাদের মধ্যে অনেকেই বলবেন ধুর আমি কেন ওর জন্য অত কিছু করতে যাব। যদি আপনি এরকমটা ভেবে থাকেন তাহলে হয়তো আপনার পুরো লাইফটাই হয়তো শুধুমাত্র রিলেশনশিপ ঠিক করা নিয়েই কেটে যাবে।

Most importance Love Tips For Your Life


3. ট্রাই টু এভোয়েড মিস আন্ডারস্ট্যান্ডিং ভুল বুঝাবুঝি আমাদের মধ্যে রিলেশনশিপ এ বিষের এর মত কাজ করে অর্থাৎ এই ভুল বুঝাবুঝি বা মিস আন্ডারস্ট্যান্ডিং থেকেই জন্ম নেয় সন্দেহ আর সন্দেহ থেকেই আস্তে আস্তে বিশ্বাস ভাঙতে শুরু করে আর এভাবেই রিলেশন এক ঘেয়ে হয়ে যায় তাই সব সময় চেষ্টা করুন নিজেদের মধ্যে কখনোই যেন সন্দেহ, ভুল-বোঝাবুঝি এগুলোর যেন কোনটাই আসতে না পারে। এখন অনেকেই হয়তো বলবেন যে যখন আমার সন্দেহ হবে তখন আমি কি করবো। সে যদি আমাকে ধোঁকা দিয়ে চলে যায় তাহলে তখন কি হবে। তখন আপনি দেখুন যে আপনি তাকে কোন সিচুয়েশনে সন্দেহ করছেন। যেমন ধরুন হতে পারে সে আপনাকে ফেসবুক কিংবা হোয়াটসঅ্যাপে অনেক লেটে রিপ্লাই করছে তখন আপনি হয়তো ভাববেন সে হয়তো অন্য কারো সাথে কথা বলতে বিজি কিন্তু তখন এই হয়তোবা টি উপর প্রশ্ন করেন যে আসলে এটি সঠিক আপনি কি হানডেট পারসেন শিওর। আপনি হয়তো নিজেও জানেন না যে সে কি করছে বসে টিভি দেখতে দেখতে কিংবা বা খেতে খেতে আপনার সাথে চ্যাট করছে, সে হয়তো অন্য কোন কাজ করছে সো এই সন্দেহ ও ভুল বুঝাবুঝি সরিয়ে ফেলুন, কারন এই সন্দেহ বারটি আপনার টেনশন বাড়িয়ে দেবে কিন্তু আপনাকে যেমন ভালবাসে দেবে না তার সাথে আপনার লাইফের অন্যান্য কাজে বাধা সৃষ্টি করবে।

So The Last point Love Tips


Don't be too much angry অর্থাৎ রিলেশনে ছোটখাটো ঝামেলা রাগারাগি অভিমান এসব থাকাটা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার কিন্তু কখনোই কোন ব্যাপার নিয়ে বেশি মাথা গরম করবেন না। নিজের রাগের উপর নিয়ন্ত্রন করতে শিখুন। রাগ মানুষের এমন একটা ইমোশন যা অত্যাধিক হয়ে গেলে আমাদের কাজের মানুষটি শত্রুতে পরিণত হয়। আর মাথা গরম হয়ে গেলে আমরা কখন যে কাকে কি বলি নিজেও বলতে পারিনা। কিন্তু এই অত্যাধিক রাগের কারণে আমাদের পরবর্তীতে পস্তাতে হয়। যেমন ধরুন আপনার গার্লফ্রেন্ড কোথাও মিট করার জন্য আপনাকে দেখা করতে বলল আপনি টাইমলি সেখানে পৌঁছে গেলেন কিন্তু তার দেখা পেলেন না, আপনি ওয়েট করতে থাকবেন এবং সে হয়তো এক ঘন্টা পর সেখানে এসে উপস্থিত হল। আপনার মাথা গরম হয়ে গেল আর সব রাগ তার উপর দেখিয়ে দিলেন তাহলে তো এই সিচুয়েশনে আপনার রিলেশনে সমস্যা আসাটা খুবই স্বাভাবিক। ছো যতটুকু রাগ না দেখা দে নয় ততটুকুই সীমাবদ্ধ রাখুন। রেগে গিয়ে নিজের উপর কন্ট্রোল হারিয়ে ফেললে ভালবাসার উপর থেকে আপনার কন্ট্রোল হারিয়ে যাবে কারণ যে নিজের আগের উপর কন্ট্রোল রাখতে পারে না সে নিজের ভালোবাসায় উপর কিভাবে বা কন্ট্রোল রাখবে। সো বন্ধুরা আজকের পোস্টটি পর্যন্ত পোস্টটি ভাল লাগলে অবশ্যই লাইক কমেন্ট করতে ভুলবেন না। আর অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে পোস্টটি শেয়ার করুন এবং আমাদের উৎসাহ করুন। আপনার মনের সমস্ত কথা খুলে বলুন এবং আমাদের সামনে এগিয়ে যাওয়ার উৎসাহ করেন। আর আপনি যদি আমাদের ওয়েবসাইটে নতুন হয়ে থাকেন তারা অবশ্যই সাবস্ক্রাইব করুন এবং ফলো করতে ভুলবেন না কারণ নতুন নতুন পোস্ট সবার আগে পেতে অবশ্যই ফলো করুন।

আরো পড়ুন

লাভ স্টেটাস

ট্রিকটক স্ট্যাটাস

ভালোবাসার টিপস



Post a Comment

0 Comments